রবিবার , সেপ্টেম্বর ২০ ২০২০
Breaking News

শত চেষ্ট করেও বাঁচানো গেলনা ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত ফাতিমাকে

স্টাফ রিপোর্টার : সদা হাস্যোজ্জল ৫৬ নং মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী ফাতিমা আক্তার (১২) মঠবাড়িয়াবাসীকে কাঁদিয়ে রোববার রাতে চলে গেল না ফেরার দেশে। রাজনৈতিক দল, প্রশাসন, শিক্ষক, দোকানী, প্রবাসী, বন্ধু-বান্ধবী, আত্মিয় স্বজন, পথ চারী থেকে শুরু করে মঠবাড়িয়ার সর্বস্থারের মানুষের শত চেষ্টার পরও সব চেষ্টা ব্যর্থ করে চলে গেল অবশেষে।

যনযায়, পৌর শহরের ফল ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান বাবুলের মেয়ে ফাতিমা আক্তার এপ্রিল মাসে অসুস্থ হয়ে পড়লে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে চিকিৎসকরা ফাতিমার দুরারোগ্য ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছে বলে জানান। এ সময় তার দরিদ্র পিতা ঢাকার খরচ চালাতে না পেরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ক্যান্সার বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মুকিতুল হুদার তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা দেন। ফাতিমার বাবা ফল ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান বাবুল ফাতিমার চিকিৎসার জন্য তার শেষ সম্বল ৫ কাঠা জমি বিক্রি করে ১টি ক্যামো থেরাপি দেয়ার পরে টাকার অভাবে আর চিকিৎসা চালাতে পারছিল না। তখন এগিয়ে এসে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আরিফ-উল-হক। চিকিৎসার সহায়তা তহবিল গঠন করেন। এর পর শিশুটির জন্য বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শিশুটির দুরবস্থা প্রকাশিত হয়। শুরু হয় বিভিন্ন স্থান থেকে অর্থ সংগ্রহের চেষ্টা। এগিয়ে আসে রাজনৈতিক দল, ইউএনও, স্কুল-কলেজ-মদ্রাসার শিক্ষক, শিক্ষার্থী, নানা সামাজিক সংগঠন প্রবাসীসহ কে, এম লতীফ ইনস্টিটিউশনের অস্টম শ্রেণির ছাত্র রাফির ও তার এক ঝাঁক তরুন বন্ধু মিলে দোকানে দোকানে বক্স নিয়ে সংগ্রহ করে অর্থ। সংগৃহিত ৫ লক্ষ ৫৩ হাজার টাকা ৩০ সেপ্টেম্বর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আশরাফুর রহমান ও চিকিৎসা সহায়তার তহবিলের উদ্যোক্তা আওয়ামীলীগ নেতা আরিফ-উল-হক ফাতিমার বাবার হাতে তুলে দেন। অর্থ সংগ্রহের পাশাপাশি চিকিৎসা চালছিল। এতে ফাতিমার ৪টি ক্যামো থেরাপি সম্পন্ন হলে শরীর ফুলে উঠলে উন্নত চিৎসার জন্য ফাতিমাকে ৫/৬দিন আগে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সকলের চেষ্টা ব্যর্থ করে রোববার রাতে ফাতিমা চলে গেলো না ফেরার দেশে (ইন্না লিল্লাহে … রাজিউন)। মানতে কষ্ট হচ্ছে। সবার কাছে ফাতিমার জন্য দোয়া কামনা করছি।
ফাতিমার বাবা হাবিবুর রহমান বাবুল জানান, মেয়ে ফাতিমার একমাত্র ১৩মাসের ভাই ফাহিমও অসুস্থ। রক্ত শূণ্যতার কারণে ডাক্তার ফাহিমকে রক্ত দিতে হয়ে। তিনি আরও জানান, দু’টি সন্তানে একমাত্র মেয়ে চলে গেলে অপর সন্তনটিও অসুস্থ। সকলে ফাহিমের জন্য দোয়া করবেন।

 

Comments

comments

Check Also

ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগীকে মানব কল্যাণ ঐক্য পরিষদের চিকিৎসা সহায়তা প্রদান

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় অলাভজনক সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মানব কল্যাণ ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে ক্যান্সারে …

গভীর রাতে গোয়াল ঘরে দুর্বৃত্তের দেয়া আগুনে গরুসহ গোয়াল ঘর পুড়ে ছাই

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া ভেচকী গ্রামে রোববার রাতে দুর্বৃত্তের দেয়া আগুনে গরু ব্যবসায়ী আব্দুল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!