শুক্রবার , নভেম্বর ২৭ ২০২০
Breaking News

মঠবাড়িয়া-পাথরঘাটার সড়কের দুই উপজেলার বেইলী ব্রীজই চলাচলে দূর্ভোগ

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া-পাথরঘাটা সড়কের সাপলেজা আবাসন সংলগ্ন দু’টি বেইলী ব্রীজ দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না করায়  দুই উপজেলার কয়েক হাজার এলাকাবাসীর দূর্ঘটনাসহ নানা ভোগান্তি পোহাচ্ছে। ব্রীজের ফাঁকায় যাত্রীবাহী বাস, মাইক্রোবাস, এ্যাম্বুলেন্স, মাহিন্দ্রসহ রিক্সা ও ভ্যানের চাকা ঢুকে গিয়ে প্রায়ই দুর্ঘটনার ঘটে।
সরেজমিনে দেখাযায়, মঠবাড়িয়া আবাসন সংলগ্ন দু’টি ব্রীজের বহু পুরনো স্লিপারে মরিচা ধরে বড় বড় খাদের সৃষ্টি হয়েছে। যার ফলে উপজেলার সাপলেজা এবং মৎস্য আহরণ কেন্দ্র পাথরঘাটার চরদুয়ানীগামী নানা পরিবহনসহ এলাকার জনসাধারনের চলাচলে অনুপযোগি হয়ে পরেছে। এ ব্রীজ দু’টির দূরত্ব মাত্র ৫’শ ফুট।
স্থানীয় বাসিন্দা আবদুল হাকিম জানান, ব্রীজ দু’টি প্রায় ত্রিশ বছর ব্রীজটি তৈরী করলে অদ্যবদি কোন সংস্কার করা হয়নি।
ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষার্থী তামিম জানান, লায়লা মালেকিয়া মাদ্রাসায় পরীক্ষা দিতে যাবার সময় ব্রীজের খাদে পা ঢুকে গিয়ে আহত হয়েছি।
অটো বাইক চালক আনিসুর রহমান জানান, ব্রীজ পারাপারের সময় যাত্রীদের গাড়ি থেকে নামিয়ে গাড়ী পার করতে হয়। এর পরেও ব্রীজের ফাঁকে চাকা আটকে গিয়ে ভোগান্তিতে পড়ি।
সাপলেজা ইউপি চেয়ারম্যান মিরাজ মিয়া জানান, গত ২৫/৩০ বছরের ব্রীজ দুটি নির্মাণের পর গত ৫ বছর আগেই চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। মাঝখানে কর্তৃপক্ষ দায়সারা সংস্কার করায় বেশীদিন স্থায়ী হয়নি। দুই উপজেলার জনসাধারণের চলাচলকারী এ ব্রীজ দিয়ে যাত্রীবাহী বাস ও মালবাহী পিকআপসহ জনসাধারণ খাদের মধ্যে পড়ে গিয়ে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে।
ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষার্থী তামিম জানান, লায়লা মালেকিয়া মাদ্রাসায় পরীক্ষা দিতে যাবার সময় ব্রীজের খাদে পা ঢুকে গিয়ে আহত হয়েছি।
উপজেলা প্রকৌশলী বদরুল আলম বলেন, ওই ব্রীজ দু’টির বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষিেলখিতভাবে জানানো হয়েছে। বরাদ্ধ পেলেই সংস্কার করা হবে।

Comments

comments

Check Also

মঠবাড়িয়ায় আসন্ন দুর্গাপূজা উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা সভা

স্টাফ রিপোর্টার : আসন্ন শারদীয় দুর্গা পূজা উপলক্ষে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় আইন শৃংখলা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। …

মঠবাড়িয়ায় মাথার খুলিবিহীন শিশুর জন্ম

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় সৌদি প্রবাসী হাসপাতালে মাথার খুলি বিহীন একটি শিশু জন্ম হয়েছে। উপজেলার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!