শনিবার , সেপ্টেম্বর ১৯ ২০২০
Breaking News

মঠবাড়িয়ায় সাংবাদিক কন্যা স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ শেষে হত্যা ॥ জড়িতদের গ্রেফতারে দাবীতে মানববন্ধন ॥ আটক ১

স্টাফ রিপোর্টার : মঠবাড়িয়ায় সাংবাদিক কন্যা চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী চাঞ্চল্যকর উর্মি (১০) কে ধর্ষণ শেষে হত্যার রহস্য উদঘাটন ও জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবীতে আজ বৃহস্পতিবার সকালে মানববন্ধন করেছে ওই স্কুলের শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসী।

উপজেলার ৬নং মধ্য বড়মাছুয়া (জামতলা) সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বড়মাছুয়া ও তুষখালী সড়কের স্থানীয় বটতলা নামক স্থানে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে শিক্ষার্থীসহ ৫’শতাধীক এলাকাবাসী অংশগ্রহণ করেন। পরে  বটতলা তিন রাস্তা মোড়ে এক সমাবেশে ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম টুকুর সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এসময় ধর্ষণ শেষে হত্যার রহস্য উদঘাটন ও জড়িতদের গ্রেফতারের দাবীতে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন,  মঠবাড়িয়া প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজু, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পংকজ কুমার, পৌর যুবলীগ সভাপতি তৌহিদ মাসুম, আভিভাবক মোঃ শামীম আকন, কামরুজ্জামান স্বপন, আসমা বেগম ও নিহতের দাদী মেহেরুন আমিন এবং নিহত শিক্ষার্থীর বাবা সাংবাদিক জুলফিকার আমিন সোহেল।

অভিভাবক শামীম আকন ও কামরুজ্জামান স্বপনসহ একাধিক অভিভাবক ওই সমাবেশে অভিযোগ করেন, ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আমিরুল ইসলাম গত পাঁচ মাস আগে যোগদানের পর থেকেই ছাত্রীদের উত্যক্ত করে আসছিল। নিহত উর্মি ও তার সহপাঠি শামীমাকেও ক্লাসে অশ্লীল মন্তব্যের প্রতিবাদ করায় নিহত উর্মিকে গত বুধবার মারধর করে। তারা আরও বলেন, ওই শিক্ষকের ভয়ে উর্মি গত বৃহস্পতিবার ক্লাসে আসেনি। এর পর গত শুক্রবার বিকেলে উত্তর বড়মাছুয়ার বাড়ি থেকে দাদী মেহেরুন আমিন এর কাছে বলে উর্মি বান্ধবীর বাড়িতে বেড়াতে যাবার কথা বলে নিখোঁজ হয়।

অভিভাবক আসমা বেগম বলেন, উর্মি ও শামীমাকে উত্যক্তের বিষয়টি আমি ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের অবহিত করি।

উল্লেখ্য দৈনিক সরেজমিনের উপজেলা প্রতিনিধি ও স্থানীয় অনলাইন মঠবাড়িয়া কন্ঠের নির্বাহী সম্পাদক সোহেল আমিন এর ছোট মেয়ে উর্মি আক্তার নিখোঁজের তিন দিন পর গত রোববার সকালে বাড়ির অদুরে ডোবা থেকে গলায় ফাঁস লাগানো লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় নিহতের পিতা রোববার রাতে অজ্ঞাত দুর্বত্তদের আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।  গতকাল বুধবার রাতে পুলিশ এঘটনায় জিজ্ঞাসা বাদের জন্য উত্তর বড়মাছুয়া গ্রামের কুদ্দস আকনের পুত্র ছগির আকন (৩৫)কে আটক করেছে।

মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা মঠবাড়িয়া থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মাজহারুল আমীন ছগির নামক এক প্রতিবেশীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, হত্যার রহস্য উদঘাটন ও জড়িতদের সনাক্ত করে গ্রেফতারে পুলিশের চেষ্টা অব্যহত রয়েছে।

Comments

comments

Check Also

মঠবাড়িয়ায় নকল কীটনাশক উদ্ধার : গ্রেফতার-১

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় উপজেলার বড়মাছুয়া বাজারে তিন কার্টুন ১শ ২০ প্যাকেট নকল ভিরতাকো …

পুত্রবধূকে মারধরের ভিডিও ভাইরাল : থানায় মামলা, শ্বাশুড়ী গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় শ^শুর ও শ্বাশুড়ী কতৃক প্রবাসী পুত্রের স্ত্রী তানজিলা বেগম (২৬) …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!