মঠবাড়িয়াবৃহস্পতিবার , ১ জুন ২০১৭
  1. আন্তর্জাতিক
  2. ইতিহাস-ঐতিহ্য
  3. খেলাধুলা
  4. জাতীয়
  5. প্রতিবেদন
  6. ফটো গ্যালারি
  7. বিচিত্র খবর
  8. বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি
  9. বিনোদন
  10. ভিডিও গ্যালারি
  11. মঠবাড়িয়ার খবর
  12. মতামত
  13. মুক্তিযুদ্ধ
  14. রাজনৈতিক খবর
  15. শিক্ষাঙ্গন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মঠবাড়িয়ায় জমিন উদ্দিন মাস্টার বাইতুল মাল জামে মসজিদে শৃংখলা ফিরিয়ে আনার দাবি

Mathbariaprotidin
জুন ১, ২০১৭ ১১:৫৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

স্টাফ রিপোর্টার :  পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার পশ্চিম সেনের টিকিকাটায় অবস্থিত জমিনউদ্দিন মাস্টার বাইতুল মাল জামে মসজিদের শৃংখলা ফিরিয়ে আনার দাবি উঠেছে। ওই মসজিদের মুসুল্লিরা এর প্রতিকার চেয়ে স্থানীয় উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবরে লিখিত আবেদনও করেছেন।

আবেদন সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পশ্চিম সেনের টিকিকাটায় জমিনউদ্দিন মাস্টার বাইতুলমাল জামে মসজিদটি প্রায় ৬০ বছর পূর্বে প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকে উক্ত মসজিদটি সুন্দর, সুষ্ঠু, পরিবেশে পরিচালিত হয়ে আসছিল। মুসুল্লিগণ মসজিদ প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে কায়িক পরিশ্রমসহ নিজস্ব আর্থিক অনুদানের মাধ্যমে মাটির তৈরি মসজিদটিকে একপর্যায়ে কাঠের এবং পরবর্তীতে পাকাকরণসহ টাইলস এর মাধ্যমে মসজিদটিকে সৌন্দর্যবর্ধন করেন। মসজিদটির তেমন কোনো সম্পত্তি না থাকায় এবং প্রতিষ্ঠাতার কোনো ছেলেমেয়ে না থাকায় মসজিদের মুসুল্লিদের ওপরই সমস্ত ব্যয়ভার এবং পরিচালনার দায়িত্ব ন্যস্ত হয়।

কিন্তু মুসুল্লিদের অভিযোগ মসজিদ প্রতিষ্ঠাতার সম্পর্কে নাতি মো. এখলাস এবং জনৈক মো. খলিলুর রহমান নামের দুই ব্যক্তি অসৎ উদ্দেশ্যে এই মসজিদের পরিচালনার দায়িত্বে স্থায়ীভাবে থাকার জন্য বিভিন্ন ধরনের ষড়যন্ত্র শুরু করেন। ওই দুই ব্যক্তি মসজিদের নিয়মিত মুসুল্লিও নয়। নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য ফরাজ ও ওয়ারিশ সুত্রে পাওয়া জমি দখলের উদ্দেশ্যে মাঝে মধ্যে জুম্মার নামাজ আদায় করে। ওদের ওই আচরণের কারণে কয়েক বছর আগে মুসুল্লিদের একাংশ আর একটি নতুন মসজিদ নির্মাণ করতে বাধ্য হন। বর্তমানে আবার সেই পূর্বের অবস্থা ধারন করছে। এমতাবস্তায় মুসুল্লিগণ স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদে সমস্যা সমাধানের জন্য আবেদন করলে ইউপি চেয়ারম্যান ও সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের মেম্বর গত শুক্রবার (২৬ মে) মসজিদে উপস্থিত হয়ে মুসুল্লিদের মতামতের ভিত্তিতে আলী হোসেন আকনকে সভাপতি ও নুরুল হক হাওলাদারকে সাধারণ সম্পাদক করে নতুন কমিটি গঠন করে সকল সমস্যা সমাধান করে দেন। কিন্তু কমিটি ওই দুই ব্যক্তির মনপূত না হওয়ায় রাতেই মসজিদে তালা দিয়ে দেয়। মুসুল্লিগণ নামাজ পড়তে এসে তালাবদ্ধ দেখতে পেয়ে থানা পুলিশের সহযোগিতায় তালা খুলে নামাজ আদায় করেন। এমতাবস্থায় মুসল্লিরা মসজিদের শৃংখলা ও পরিবেশ ফিরিয়ে আনার জন্য দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

এ ব্যাপারে খলিলুর রহমান তার বিরুদ্ধে মসজিদের পরিবেশ নষ্ট করার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি আরও চেষ্টা করে যাচ্ছি উক্ত মসজিদের পরিবেশ সুন্দর ও মসজিদটিকে আরও উন্নত করার।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।
error: Content is protected !!