রবিবার , সেপ্টেম্বর ২০ ২০২০
Breaking News

বিভিন্ন প্রজাতির দেশী মাছ বিলুপ্ত প্রায়! ছোট মাছ অবাধে নিধনের উৎসব

ইসরাত জাহান মমতাজ : ভৌগলিক অবস্থানে নিচু ভূমির উপকূলীয় পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় অসংখ্য জলাশয়ে এক সময়ে দেশী মাছের অভয়ারণ্য ছিল। বিভিন্ন প্রজাতির দেশী মাছের ভান্ডার বলে খ্যাত এ মঠবাড়িয়ায় চলছে স্থানীয় প্রশাসনের নীরব ভূমিকায় অসাধু জেলেরা খাল, বিল ও ডোবাসহ ¯্রােতের পানি চলাচল স্থলে মাছ নিধন উৎসব। দিন দিন জলাশয় ভরাট করে আবাস গড়া এবং নিত্য নতুন পদ্ধতিতে মাছ নিধনের ফলে বিলুপ্ত প্রায় দেশী মাছ। এ কারণে জলাশয় গুলো দেশী মাছ শূন্য হওয়ার পথে।
শোল, গজার, কৈ, শিং, মাগুর, পুটি, পাবদা, টেংরা, বাইলা, টাকি, বাইন, বাশপাতা, রুই, কাতল, মৃগেল, ফলি, সর পুটি, বোয়াল, ভেটকি, দরগি, মলান্দি, চান্দাগুরা, ভেদী, বকথুরিনা, চিতল, উটকাল, নাপতা চিংড়ি, মলা, ভাটা, ফাইস্যা, বাতসী, চ্যালা, কাটালি, মৌ কাটালি, গোদা চিংড়ি ইত্যাদি দেশী মাছে সমৃদ্ধ জলাশয় এখন মাছ শূন্যের পথে। অনেক দেশী মাছের নাম এখন শুধু বইয়ের পাতা আর মৎস্য অফিসের পাতায় আছে পানিতে নাই।


সরেজমিনে দেখা যায়, ধানক্ষেত, ডোবা, খাল ও পুকুরে ৪ সেন্টিমিটারের ছোট ফাঁসের বেআইনি বাঁধা (বেন্দি), বোডা, গড়া ও চরগড়া জালসহ মিহি সুতার কারেন্ট জাল এবং বুচনা চাই দিয়ে মাছ, মাছের রেণু ও ডিম নিধন করা হয়। বিভিন্ন খালে কয়েক’শ বাঁধা ও গড়া জাল পাতা হয়। গড়া জালে শুধু মাছ নয় খালের পাড়ও ভেঙ্গে যায়।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেলেরা জানান, খালে জাল পাতার জন্য এলাকার প্রভাবশালীদের মাসহারা দিতে। স্থানীয় নামে ছোট ফাঁসের জাল দিয়ে তৈরী বোডা ও কারেন্ট জাল এবং চাই পাতা হয় ধানক্ষেতে। আর ফসলের ক্ষেতে নির্বিচারে কীট নাশক ব্যবহারে মাছের বংশ বৃদ্ধি দারুনভাবে ব্যহত হচ্ছে।
উপজেলার আমুয়া-মিরুখালী-ধানিসাফা-তুষখালী লাইনের খালে মিরুখালী খালে আড়াআড়িভাবে অবৈধ গড়া জাল পেতে দীর্ঘ দিন ধরে মাছ নিধন করে আসছে জাকির হোসেন। এ অবৈধ মাছ নিধনের বিষয় জানতে চাইলে ওই গ্রামের জাকির হোসেন জানান, গত ৫-৬ বছর ধরে মাছ ধওে আসছি প্রশাসনের কোন সমস্যার সম্মুখিন হতে হয়নি।
সম্প্রতি বলেশ্বর নদ সংলগ্ন বড়মাছুয়ার খাল ও স্থানীয় গুদিঘাটা খালের পানিতে কতিপয় অসাধু ব্যক্তিরা বিষ প্রয়োগ করলে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ অচেতন হয়ে ভেঁসে উঠলে জেলেরা ওই মাছ নিধন করে।
মা ইলিশ রক্ষায় অবরোধের সময় বলেশ্বর নদ তীরবর্তী এলাকায় উপজেলা মৎস্য দপ্তরের সহায়তায় উপজেলা প্রশাসন কয়েকটি অভিযান চালিয়ে কিছু জাল পোড়ায়। এর বাইরে দেশী মাছ রক্ষায় প্রশাসনের আর কোন তৎপরতা সারা বছরে দেখা যায় না।
এ বিষয়ে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ মোজাম্মেল হকের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, এক মাস হয় মঠবাড়িয়ায় যোগ করেছি। দেশী মাছ নিধন বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Comments

comments

Check Also

মঠবাড়িয়ায় নকল কীটনাশক উদ্ধার : গ্রেফতার-১

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় উপজেলার বড়মাছুয়া বাজারে তিন কার্টুন ১শ ২০ প্যাকেট নকল ভিরতাকো …

পুত্রবধূকে মারধরের ভিডিও ভাইরাল : থানায় মামলা, শ্বাশুড়ী গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় শ^শুর ও শ্বাশুড়ী কতৃক প্রবাসী পুত্রের স্ত্রী তানজিলা বেগম (২৬) …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!