মঠবাড়িয়াবুধবার , ৭ জুন ২০১৭
  1. আন্তর্জাতিক
  2. ইতিহাস-ঐতিহ্য
  3. খেলাধুলা
  4. জাতীয়
  5. প্রতিবেদন
  6. ফটো গ্যালারি
  7. বিচিত্র খবর
  8. বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি
  9. বিনোদন
  10. ভিডিও গ্যালারি
  11. মঠবাড়িয়ার খবর
  12. মতামত
  13. মুক্তিযুদ্ধ
  14. রাজনৈতিক খবর
  15. শিক্ষাঙ্গন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

পিরোজপুরে স্কুলছাত্রকে হত্যার দায়ে দুই ভাইয়ের মৃত্যুদণ্ড

Mathbariaprotidin
জুন ৭, ২০১৭ ৬:২৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

স্টাফ রিপোর্টার :  পিরোজপুরে স্কুলছাত্র সাদমান সাকিব প্রিন্সকে (১৪) হত্যার দায়ে আপন দুই ভাইয়ের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ হয়েছে। দণ্ডাদেশপ্রাপ্তরা হলো নাফিজ হাসান নাহিদ (১৯) ও তার বড় ভাই নাজমুল হাসান নাঈম (২৫)। এ মামলার অপর আসামি নাহিদ ও নাঈমের পিতা শফিকুল আলম হাওলাদারকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে। পিরোজপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকারপক্ষের আইনজীবী খান মোঃ আলাউদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

জানা গেছে, ২০১৩ সালের ২৯ আগস্ট নাহিদ ও নাঈম দুই ভাই মিলে ক্রিকেট খেলার কথা বলে সাদমান সাকিব প্রিন্সকে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে খেলা নিয়ে তাদের সাথে সাকিবের ঝগড়া হয়। তখন তারা কৌশলে তাকে তাদের সিআইপাড়ার বাসায় নিয়ে হত্যা করে লাশ ঘরের খাটের নিচে লুকিয়ে রাখে। পরে রাতের কোনো এক সময় তারা সাকিবের হাত-পা বাঁধা লাশটি কাঠের সাথে রশি দিয়ে বেঁধে তাদের ভাড়া বাসার সামনে রায়েরপুকুরে ফেলে দেয়। ১ সেপ্টেম্বর এলাকাবাসী পুকুরে লাশ ভাসতে দেখে পুলিশকে খবর দিলে সদর থানা পুলিশ পুকুর থেকে লাশটি উদ্ধার করে।

নিহত সাকিব পিরোজপুর টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের দশম শ্রেণির ছাত্র ছিল। নিহতের পিতা ২ সেপ্টেম্বর উল্লেখিত তিন জনকে আসামি করে পিরোজপুর সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘদিন ঘটনার তদন্ত শেষে ২০১৪ সালের ২৪ জুলাই পুলিশ তাদের তিন জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। বুধবার দুপুরে পিরোজপুরের জেলা ও দায়রা জজ মোঃ গোলাম কিবরিয়া সাদমান সাকিব প্রিন্সকে হত্যার দায়ে আসামি নাফিজ হাসান নাহিদ ও তার বড় ভাই  নাজমুল হাসান নাঈমকে মৃত্যুদণ্ড এবং হত্যার পর লাশ লুকিয়ে রাখার অপরাধে তাদের সাত বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেন, একই সঙ্গে ৫০ হাজার টাকা জরিমানাও ধার্য করা হয়। অপর আসামি নাহিদ ও নাঈমের পিতা শফিকুল আলমকে বেকসুর খালাস দেন। আসামিদের গ্রামের বাড়ি ইন্দুরকানী উপজেলায়। রায়ের সময় নাজমুল হাসান নাঈম আদালতে উপস্থিত ছিলেন না।

এ দিকে মামলার বাদী জাকির হোসেন সর্দার লিটন শফিকুলের খালাস পাওয়ার ব্যাপারে অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, আমি উচ্চ আদালতে আপিল করব। আসামিপক্ষে কৌশলী ছিলেন অ্যাডভোকেট সিরাজুল হক।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।
error: Content is protected !!