মঠবাড়িয়াবুধবার , ২ আগস্ট ২০১৭
  1. আন্তর্জাতিক
  2. ইতিহাস-ঐতিহ্য
  3. খেলাধুলা
  4. জাতীয়
  5. প্রতিবেদন
  6. ফটো গ্যালারি
  7. বিচিত্র খবর
  8. বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি
  9. বিনোদন
  10. ভিডিও গ্যালারি
  11. মঠবাড়িয়ার খবর
  12. মতামত
  13. মুক্তিযুদ্ধ
  14. রাজনৈতিক খবর
  15. শিক্ষাঙ্গন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

চাকরি দেয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে মিরুখালী কলেজ অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে মামলা

Mathbariaprotidin
আগস্ট ২, ২০১৭ ৮:১২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় কলেজে শিক্ষকতার চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে এক চাকরিপ্রার্থীর নিকট হতে তিন লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে কলেজ অধ্যক্ষ ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। প্রতারিত চাকরিপ্রার্থী মঠবাড়িয়ার নাপিতখালী গ্রামের মাধব চন্দ্র দেউরীর ছেলে সমীর রঞ্জন দেউরী বাদী হয়ে বুধবার মঠবাড়িয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় উপজেলার মিরুখালী কলেজের অধ্যক্ষ মো. গোলাম মোস্তফা কামাল ও তার স্ত্রী সাবিহা সুলতানাকে আসামি করা হয়েছে।

মঠবাড়িয়া সিনিয়ির জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারিক হাকিম মো. বেল্লাল হোসেন মামলাটি আমলে নিয়ে অভিযোগের বিষয়টি তদন্তের জন্য উপজেলা সমবায় কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছেন। আগামী দুই মাসের মধ্যে তদন্ত করে তাকে আদালতে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য বলা হয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, মিরুখালী কলেজের অধ্যক্ষ মো. গোলাম মোস্তফা তার প্রতিষ্ঠানে শূন্যপদে একজন শারীরিক শিক্ষক (বিপিএড) নিয়োগের নামে উপজেলার নাপিতখালী গ্রামের বেকার যুবক সমীর রঞ্জন দেউরীকে ২০১৩ সালে নিয়োগ দেন। সরকারি নিয়োগের বিধিবিধান ছাড়াই কলেজ অধ্যক্ষ চাকরিপ্রার্থী সমীর রঞ্জনকে শারীরিক শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেয়ার নামে তার কাছ থেকে তিন লাখ টাকা ঘুষ গ্রহণ করেন। সমীর রঞ্জন সেই থেকে কলেজে শিক্ষক হিসেবে কাজ করে আসছিলেন। টানা দুই বছর বিনা বেতনে কাজের পরও সরকারি বিধি মোতাবেক তাকে অধ্যক্ষ নিয়োগ দিতে ব্যর্থ হলে ছয় মাসের মধ্যে টাকা তাকে ফেরত দেয়ার কথা বলেন। কিন্তু গত চার বছরেও চাকরি প্রার্থীর নিকট হতে গ্রহণকৃত তিন লাখ টাকা কলেজ অধ্যক্ষ ফেরত না দিয়ে টালবাহানা করে আসছেন।

ভুক্তভোগী চাকরিপ্রার্থী সমীর রঞ্জন দেউরী জানান, ২০১৫ সালে ওই তিন লাখ টাকা ফেরত পাওয়ার জন্য তিনি আদালতে কলেজ অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছিলেন। এরপর সাবেক সংসদ সদস্য ডা. আনোয়ার হোসেনের নির্দেশে মামলাটি প্রত্যাহার করে নিতে বাধ্য হন। সাবেক ওই সংসদ সদস্য টাকা ফেরতের আশ্বাস দিলে বাদী মামলাটি তুলে নেন। কিন্তু আজ পর্যন্ত কলেজ অধ্যক্ষ সমুদয় টাকা তাকে ফেরত না দিয়ে টালবাহানা করে আসছেন। তাই বাধ্য হয়ে তিনি দ্বিতীয় দফায় আদালতে মামলা দায়ের করে প্রতিকারের আবেদন জানান।

এ বিষয়ে মিরুখালী কলেজের অধ্যক্ষ মো. গোলাম মোস্তফা ওই চাকরিপ্রার্থীর কাছ থেকে টাকা নেয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, কলেজ উন্নয়ন ফান্ডের জন্য ওই টাকা নেয়া হয়েছিল। নানা জটিলতায় ওই প্রার্থীকে কলেজে সরকারি বিধি মোতাবেক নিয়োগ দেয়া সম্ভব হয়নি।

চাকরি না পেলে তার দেয়া টাকা সে ফেরত পাবে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে কলেজ অধ্যক্ষ বলেন, ওই টাকা তো কলেজ উন্নয়নে ব্যয় হয়ে গেছে।

এ বিষয়ে কলেজ গভর্নিংবডির অ্যাডহক কমিটির সদস্য অভিজিৎ সরকার অভিযোগের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, চাকরি না হলে নীতিগত কারণে চাকরি প্রার্থী টাকা ফেরত পাবেন। বিষয়টি পরবর্তী অ্যাডহক কমিটির সভা অবহিত করবেন বলে তিনি জানান।

 

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।
error: Content is protected !!