মঙ্গলবার , জুলাই ৭ ২০২০
Breaking News

করোনা-পরবর্তী মঠবাড়িয়ার চেহারাটা কেমন হবে ? -মীর তারেক

সত্যই কি করোনাভাইরাস বদলে দিয়েছে পৃথিবী! বিশ্বের যে দেশেই থাকুন, কোভিড-১৯ মহামারির দাপটে বদলে গেছে প্রত্যেকের জীবন। করোনা-পরবর্তী পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া নামক শহরটির চেহারাটা কেমন হবে? প্রশ্নটা নিয়ে আজ সারা দিন ভেবেছি। মধ্যরাত অব্দি ভাবছি। যেখানে ইউরোপ-আমেরিকা করোনার কাছে হেরে গেছে, সেখানে আমাদের মতো সদ্য উন্নত উপজেলাটি কীভাবে টিকে থাকবে!
মঠবাড়িয়ায় যখন লকডাউনের বিধিনিষেধ শিথিল করা হচ্ছিল তখনকার উপজেলার বিভিন্ন স্থানের কিছু সংবাদ ও ছবি থেকে একটা ধারণা করা যায় যে, লকডাউন ওঠার পর নতুন ধরনের জনজীবনের চেহারা কী হতে যাচ্ছে। এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দেখা গেছে, পৌর শহরের ৯নং ওয়ার্ডকে রেড জোন ঘোষণা করেছে স্থানীয় প্রশাসন। এতে ভীতসন্ত্রস্ত না হয়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে সম্পূর্ণ মঠবাড়িয়াকে রেড জোন ঘোষণা করে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে প্রশাসনকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন সচেতন মহল ও রাজনীতিবিদরা। যদিও-বা সরকার-নির্দেশিত করোনা সংক্রমণের হারের ওপর নির্ভর করে কোন এলাকা কোন জোনের আওতায় পড়বে তা নির্ধারণ করে প্রশাসন।
অবশ্য শুরুতেই করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে যে কঠোর নজরদারির প্রয়োজন ছিল তা করা সম্ভব হয়নি। না, সব দায়-দোষ অবশ্যই স্থানীয় কর্তৃপক্ষের নয়। স্থানীয় নাগরিকদের কারো কারো সচেতনতার অভাব, কোনো নিয়মবিধি না মানার বেপরোয়া মনোভাব, প্রকৃত তথ্য গোপনের প্রবণতা, ধর্মীয় গোঁড়ামি ইত্যাদি মঠবাড়িয়া উপজেলাকে এক গভীর সংকটের মুখে ঠেলে দিয়েছে। আগামী কয়েক সপ্তাহে সবকিছু নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। তাই সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা উচিত। যেমন সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, মাস্ক পরা, যদি নিজের সন্দেহ লাগে তাহলে বাসায়ও মাস্ক পরা, হ্যান্ড গ্লাভস বেশি ব্যবহার না করা। কারণ হ্যান্ড গ্লাভস বেশি ব্যবহার করলে তার জীবাণু নাকে ও চোখে গিয়ে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই এই বিষয়গুলো মেনে চলা খুবই জরুরি।
জনসাধারণের অগ্রাধিকার বিবেচনার মধ্যে আন্তরিক ঘাটতি থাকায় করোনাভাইরাসের আক্রমণে উপজেলার স্বাস্থ্যসেবার বেহাল চিত্র ফুটে উঠেছে। সম্প্রতি মঠবাড়িয়ায় করোনা উপসর্গ নিয়ে শিল্পী বেগম (৪০) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু ঘটেছে। এ সংবাদ দ্রুত এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে জনসাধারণের মধ্যে ভীতি ও চঞ্চলতার সৃষ্টি হয়।
আমাদের অসচেতনতায় করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিতে পারে। ইতিমধ্যে উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলছে। তাই আমার প্রিয় মঠবাড়িয়াবাসীর প্রতি বিশেষ অনুরোধ, করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে ঘরে থাকুন। নিজে নিরাপদ থাকুন, অন্যকে নিরাপদ রাখুন। আর কারো মধ্যে সামান্য পরিমাণে উপসর্গও যদি দেখা দেয় অথবা সন্দেহ হয়, তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শসহ করোনা পরীক্ষা করান। নমুনা দেওয়ার পাশাপাশি আইসোলেশনে থাকবেন। রোগীর স্বজনদেরও যথেষ্ট সচেতন হতে হবে।
সর্বোপরি কামনা করি, ক্ষতি যা হয়ে গেছে তার মধ্যেই যেন সীমাবদ্ধ রাখতে পারি। নতুন করে আর যেন কাউকে ক্ষতিগ্রস্ত হতে না হয় সেজন্য সবাই সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করি। আমরা জানি, আঁধার যত ঘনই হোক, তা একসময় কেটে যাবেই। সেদিন আবার সবাই মিলেমিশে আনন্দে দিন কাটাব। সে পর্যন্ত যেন সবাই বেঁচে থাকতে পারি সেজন্যই আজকের এই সচেতনতা। সবাই ভালো থাকুন। সুস্থ থাকুন।
—————————————————————–
– মীর তারেক
সভাপতি
আওয়ামী যুবলীগ, কুয়েত মহানগর শাখা।

 

Comments

comments

Check Also

মঠবাড়িয়ায় ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্থ ৫টি ঘর নির্মাণ করে দিলো সেনাবাহিনী

স্টাফ রিপোর্টারঃ ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের তান্ডবে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার বলেশ^র নদ তীরবর্তী বড়মাছুয়া ইউনিয়নে খেজুর বাড়িয়া, চড় …

মঠবাড়িয়ায় কর্মহীন মানুষের মাঝে বিএনপি‘র খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

বিএনপি‘র প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক শহীদ রাস্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৯ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে ও করোনা …

error: Content is protected !!