,

সংবাদ শিরোনাম :

মুক্তিযুদ্ধ এবং খান সাহেব হাতেম আলী জমাদ্দার (৪র্থ পর্ব) – নূর হোসাইন মোল্লা

নূর হোসাইন মোল্লা :  সাপলেজা ইউনিয়নের একটি গ্রাম। এ গ্রামের মোট জনসংখ্যার প্রায় অর্ধেক হিন্দু। তারা শিক্ষা-দীক্ষায় অগ্রসর ছিলেন। এ গ্রামটি মঠবাড়িয়া সদর থেকে ১২ কিলোমিটার এবং এ লেখকের বাড়ি ...বিস্তারিত

   মুক্তিযুদ্ধ এবং খান সাহেব হাতেম আলী জমাদ্দার (৩য় পর্ব) – নূর হোসাইন মোল্লা

নূর হোসাইন মোল্লা : মঠবাড়িয়া থানার শান্তি কমিটি রাজাকার বাহিনী গঠন করে ১৯৭১ সালের জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে। এ বাহিনী গঠনের পূর্বে মুসলিম লীগ এবং জামায়াত ইসলামীর নেতাদের তথা শান্তি ...বিস্তারিত

মঠবাড়িয়ার পৌর মেয়র সাহেব সমীপে

মাননীয় পৌর মেয়ার রফিউদ্দিন আহম্মেদ ফেরদৌস ভাই, পতরের শুরুতে আমার শত কুটি সালাম গেরহন করবেন। আশা হরি আমনহে গায় কুশলে আছেন। মোরাও গাও-গেরামের অদম মুরখো নাড়াকাডা খাইড্ড্যা খাওয়া পাবলিকেরা খোদার ...বিস্তারিত

মুক্তিযুদ্ধ এবং খান সাহেব হাতেম আলী জমাদ্দার  (২য় পর্ব) – নূর হোসাইন মোল্লা

নূর হোসাইন মোল্লা : রাজাকার বাহিনী ছিল হিংস্র। তারা পবিত্র কুরাআনের বানী বেমালূুম ভুলে গিয়ে হিন্দু সম্প্রদায় এবং স্বাধীনতাকামীদের বাড়িঘর লুটপাট, অগ্নিসংযোগ, চাঁদাবাজি, প্রতিশোধ, নারী নির্যাতন ও হত্যাসহ মানবতা বিরোধী ...বিস্তারিত

মুক্তিযুদ্ধ এবং খান সাহেব হাতেম আলী জমাদ্দার – নুর হোসাইন মোল্লা

নূর হোসাইন মোল্লা :  ১৯৭১ সালের ঐতিহাসিক ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার ডাক দিয়ে শত্রুর মোকাবেলার জন্যে প্রস্তুত থাকতে নির্দেশ দেন। এ ঘোষনার পর ৪ মে সওগাতুল আলম ...বিস্তারিত

জননন্দিত খান সাহেব হাতেম আলী জমাদ্দার (২য় পর্ব)

নূর হোসেইন মোল্লা : পিরোজপুরের মুসলিম লীগ নেতা ও সাবেক মন্ত্রী খান বাহাদুর সৈয়দ মো. আফজাল এর নেতৃত্বে ৭ মে পিরোজপুর মহকুমা শান্তি কমিটি গঠিত হয় (দৈনিক আজাদ ৮ মে, ...বিস্তারিত

জননন্দিত খান সাহেব হাতেম আলী জমাদ্দার

নূর হোসেইন মোল্লা : খান সাহেব হাতেম আলী জমাদ্দার বলেশ্বর ও বিশখালী নদীর মধ্যবর্তী ভূ-ভাগে জননন্দিত নেতা ছিলেন। তিনি ১৮৭৭ সালে পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলার উত্তর মিঠাখালী গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম ...বিস্তারিত

পিরোজপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন মহারাজ সাহেবের প্রতি

সম্মানীত জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ভাইজান, পতরের শুরুতে আমার শত কুটি সালাম গেরহন করবেন। আশা হরি আমনহে গায় কুশলে আছেন। মোরাও গাও-গেরামের অদম মুরখো নাড়াকাডা পাবলিকেরা খোদার মেহেরবানিতে কোনো রহম আছি। ...বিস্তারিত

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর মঠবাড়িয়ার ৩ আওয়ামী লীগ নেতাকে গ্রেফতার করা হয়

মো. সাইদুল হক খান : ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পরে সারা দেশে আওয়ামী লীগের বেশ কিছু নেতাকর্মী তৎকালীন খুনি সরকারের রোষানলে পড়ে গ্রেফতার ...বিস্তারিত

বঙ্গবন্ধু হত্যার অন্যতম প্রধান কারণ গোয়েন্দা ব্যর্থতা

নূর হোসাইন মোল্লা : জাতির জনক বঙ্গবন্ধু হত্যার অন্যতম প্রধান করাণ ছিল গোয়েন্দাদের ব্যর্থতা। বঙ্গবন্ধুর সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্রের গুঞ্জন দীর্ঘদিন ধরে ঢাকা শহরে চলেছিল। ঢাকা ব্রিগেড কমান্ডার কর্নেল সাফায়াত জামিল ...বিস্তারিত