,

শিরোনাম :

৬ষ্ঠ বারের মত মনোয়ন জমা দিলেন নির্বাচন পাগল সুধীর বিশ্বাস !

স্টাফ রিপোর্টার : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পিরোজপুর-৩ (মঠবাড়িয়া) আসনে ৬ষ্ঠ বারের মতো মনোনয়ন পত্র জমা দিলেন নির্বাচন পাগল সুধীর বিশ্বাস। ৫টি নির্বাচনে জামানত বাজেয়াপ্ত হওয়া চার সন্তানের জনক উপজেলার গিলাবাদ গ্রামের সুধীর রঞ্জন বিশ্বাস (৬০) গত বুধবার সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জিএম সরফরাজের কাছে এ মনোনয়ন পত্র জমা দেয়ার পর থেকেই তাকে নিয়ে সর্বত্র আলোচনার ঝড় বইছে। কখনো নিজের ভোটটি ছাড়া প্রস্তাবকারী ও সমর্থনকারীদের ভোট পায়নি সুধীর বিশ্বাস।
আলাপকালে সুধীর রঞ্জন বিশ্বাস জানান, তার স্ত্রী অঞ্জলী রানী বিশ্বাস ছিলেন একজন নির্বাচিত ইউপি সদস্য। ৩০ বছর আগে স্ত্রীর মারা যাবার পর থেকেই তার আত্মার সন্তুষ্টির জন্যই নির্বাচন করে আসছেন। নিজেকে তিনি একজন গ্রাম্য চিকিৎসক দাবী করে বলেন, রোগীদের চিকিৎসা পত্র দিয়ে জমিয়ে রাখা ৭ হাজার টাকা ও বাড়ীর দুটি রেন্ট্রি গাছ বিক্রির ২৩ হাজার টাকা মোট ৩০ হাজার টাকা দিয়ে এবছর মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছি। তিনি আরও জানান, এর আগেও ৪টি এমপি নির্বাচনের মনোনয়ন ও একটি ইউনিয়ন পরিষদের মনোনয়ন পত্র জমা দিয়ে মুলা প্রতীকে প্রতিদ্বন্দীতা করেছি। এবারও তিনি মুলা প্রতীকে নির্বাচন করার ইচ্ছে প্রকাশ করেন। কিন্তু নির্বাচন কমিশনে এবার মুলা প্রতীক না থাকায় তিনি বিপাকে পড়েছেন। নির্বাচনে বিজয়ী হলে তিনি বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে জেল থেকে মুক্ত করবেন। তিনি বলেন, আমি কোন মানুষকে বন্দী দেখতে চাইনা। আমি মানুষের কল্যাণ চাই। জনগন আমাকে ভোট দিলে হবো এমপি, না দিলে হবো মন্ত্রী। তার এ বক্তবে এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

 

Comments

comments