,

শিরোনাম :

সৌরভ আসবেন বাংলাদেশে

মঠবাড়িয়া প্রতিদিন ডেস্ক : ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং দেশটির ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআইয়ের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলির আমন্ত্রণে ‘ইডেন বেল’ বাজিয়ে ঐতিহাসিক দিবা-রাত্রির টেস্টের উদ্বোধন করেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ উপলক্ষে শেখ হাসিনাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনায় মোড়ানো একটি ছবি উপহার দিয়েছেন সৌরভ। প্রিন্স অব কলকাতা জানিয়েছেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে আয়োজিত ম্যাচ দেখতে ঢাকায় আসবেন তিনি।

জাতির জনকের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বিসিবি আয়োজন করছে দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ, খেলবে বিশ^ একাদশ ও অল স্টার এশিয়া একাদশ। ম্যাচ দুটো হবে সামনের বছরে ১৮ থেকে ২১ মার্চের মধ্যে, ভেন্যু মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়াম। ওই ম্যাচগুলো দেখতে বাংলাদেশে আসার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন সৌরভ, ‘আমরা প্রধানমন্ত্রীকে তার বাবার (শেখ মুজিবুর রহমান) সোনায় মোড়ানো ছবি দিয়েছি। তার জন্মশতবার্ষিকী নিয়ে অনেক বড় উৎসব হচ্ছে। আমি জানি, দুটো ম্যাচও হবে বিশ^ একাদশ ও এশিয়া একাদশের মধ্যে। আমি অবশ্যই যাব।’

শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাতেও ভুল করেননি সৌরভ। পেছনের স্মৃতি টেনে এনে বিসিসিআই সভাপতি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এভাবে, ‘প্রধানমন্ত্রীকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। এক কথায় আমাদের এখানে চলে এসেছেন। আমার সঙ্গে অনেকদিন ধরেই উনার সম্পর্ক আছে এবং সেটি খুবই ভালো। ২০০০ সালে যখন ভারত-বাংলাদেশ টেস্ট ম্যাচ হয়, তখন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন তিনি। তখন থেকেই উনার সঙ্গে আমার ভালো সম্পর্ক।’

ইডেন ছাড়াও আরও একটি ঐতিহাসিক টেস্টের সাক্ষী বাংলাদেশ-ভারত, সেটা ২০০০ সালে। যা ছিল বাংলাদেশের প্রথম পাঁচ দিনের ম্যাচ এবং ওই টেস্ট দিয়েই শুরু হয় সৌরভের অধিনায়কত্বের যুগ। ম্যাচটিতে প্রশংসনীয় ছিল টাইগাররা আর উত্থান শুরু হয় ভারতীয় ক্রিকেটেও। পুরনো সেই দিনের কথাগুলো তাই ভোলেননি সৌরভ, ‘ওরা প্রথম টেস্টেই অসাধারণ খেলেছিল। আমি ভারতের নতুন অধিনায়ক ছিলাম। তারা প্রথম টেস্টে ৪০০ রান করেছিল।’

যে বাংলাদেশ ১৯ বছর আগে এক ইনিংসে করেছিল ৪০০ রান, সেই বাংলাদেশ এবার ভারতের মাটিতে দুই টেস্টের একটিতেও দুই ইনিংস মিলিয়ে করতে পারেননি ৪০০। যদিও তাতে টাইগারদের মোটেও খাটো করে দেখছেন না সৌরভ। বোর্ড সভাপতি বলেন, ‘খেলা দেখে তো লাল বলের চেয়ে গোলাপি বলের টেস্টকেই সহজ মনে হচ্ছে! তবে তোমাদের (বাংলাদেশের) অনেক ক্রিকেটার নেই। তিন-চারজন ভালো ক্রিকেটার না থাকলে সেরাটা খেলা কঠিন।’

ঐতিহাসিক কলকাতা টেস্টে বাংলাদেশের বোলারদের সবচেয়ে বেশি ভুগিয়েছেন বিরাট কোহলি। প্রথম ইনিংসে ভারতের ৩৪৭ রান সংগ্রহে অধিনায়কের অবদান ১৩৬। টেস্ট ক্যারিয়ারের ২৭তম সেঞ্চুরিতে কোহলি মাতেন রেকর্ড ভাঙা-গড়ার খেলায়। তাই কোহলিকে রান মেশিন হিসেবেই অ্যাখ্যা করলেন সাবেক অধিনায়ক সৌরভ, ‘সে তো রান মেশিন। একের পর এক সেঞ্চুরি করেই যাচ্ছে।’

 

0Shares

Comments

comments