,

শিরোনাম :
«» সরকারি হাতেম আলী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে ৩ দিনব্যপী বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা শুরু «» মঠবাড়িয়ায় ইসলামী ঐক্যের মহা সম্মেলন সফল করতে সংবাদ সম্মেলন «» মঠবাড়িয়ায় আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আটক «» মঠবাড়িয়ায় তিন দিনব্যাপী বিজ্ঞান মেলার উদ্বোধন «» মঠবাড়িয়ায় দিনব্যাপী দুর্যোগ বিষয়ক কর্মশালা «» মঠবাড়িয়ায় অটিজম ও নিওরো ডেভেলপমেন্ট ডিজএ্যাবিলিটিজ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত «» মঠবাড়িয়ায় খাল ভাঙ্গন রোধে পাইলিংয়ের দাবিতে মানববন্ধন «» মঠবাড়িয়ায় ১হাজার ৩ শ’ পিস ইয়াবাসহ মা, মেয়ে ও ছেলে গ্রেফতার «» মঠবাড়িয়ায় ধানক্ষেত থেকে উদ্ধার হওয়া মরদেহের পরিচয় মিলেছে «» মঠবাড়িয়ায় ২৯ হাজারের অধিক শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস খাওয়ানো হয়েছে

সংসদ সদস্য ডা. রুস্তম আলী ফরাজীর ছবি ভাইরাল

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুর-৩ (মঠবাড়িয়া) আসনের সংসদ সদস্য ডা. রুস্তম আলী ফরাজীর একটি ছবি সম্প্রতি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। ছবিটিতে দেখা যায়, ডা. রুস্তম আলী ফরাজী পায়ের ওপর পা তুলে একটি চেয়ারে বসে আছেন আর একজন আশিঊর্ধ্ব বয়সের লোক দাঁড়িয়ে তার সঙ্গে করমর্দন করছেন।
ছবিটি ফেসবুকে শেয়ার দিয়ে একজন প্রবাসী মঠবাড়িয়াবাসী লিখেছেন, ‘আমার এলাকা মঠবাড়িয়ার এমপি রুস্তম ফরাজি। সুযোগ বুঝে দল করেছেন এক এক সময় একেকটা। চরমোনাই, জাতীয় পার্টি, বিএনপি এখন আবার জাতীয় পার্টি। কোন সুস্থ ও সভ্য মানুষের পক্ষে এইটা সম্ভব?’
শুক্রবার রাতে এ রিপোর্ট লেখার সময় পর্যন্ত ছবিটি আটজনে শেয়ার করেছেন আর মন্তব্য পড়েছে ৮২টি।
মন্তব্যের ঘরে একজন লিখেছেন, ‘… … যার দল পরিবর্তন করার স্বভাব আছে তার নীতি বা আদর্শ কোনোটাই নাই। তার বহিঃপ্রকাশ হলো এটি।’
আরেকজন লিখেছেন, ‘সে নাকি নেতার রাজনীতি করে না! সাধারণ জনগণের রাজনীতি করে! আর সে নিজেকে মনে মনে মঠবাড়িয়ার রাজনৈতিক ফাদার মনে করে অনেক আগে থেকেই!’
অন্য একজন লিখেছেন, ‘ডাঃ রুস্তম অালী ফরাজী সাহেব নিজেও একজন বয়স্ক মানুষ। তা ছাড়া অসাবধানতাবসতও এমনটি হতে পারে। উঁনি এমপি হয়ে মানুষের দ্বারে দ্বারেই ঘুরে বেড়াচ্ছেন। গ্রামে গ্রামে যাচ্ছেন একা একাই। অনেকে তো এমপি হয়ে এলাকায় খবর থাকে না। উঁনি তার বিপরীত। এতোটুকু আচরণ নিয়ে রাজনীতিবিদদের রাজনীতি না করলেই হয়। প্রয়োজনও নেই। ঐ মুরব্বী তার পূর্ব পরিচিত কিংবা নিকটাত্মীয়ও হতে পারে।’
এর উত্তরে একজন লিখেছেন, ‘যতই নিকটাত্মীয় হোক না কেনো মুরব্বির চেয়ে বয়স বেশি না মুরব্বি যদি উনার কাছে অাসতে পারে তাহলে উনি একটুও দাড়িয়ে যেতে পারলেন না! উচিৎ ছিল দাড়িয়ে তাঁকে বুকে জড়িয়ে ধরা। সন্মান দিলে সন্মান কমেনা তাতে সন্মান বাড়ে?’
আরেকজন লিখেছেন, ‘এমপি সাহেবের যে কত হিংসা দেমাগ আছে তা এই ছবি প্রমান দেয়।’
এ ছাড়া অনেকেই ‘দুঃখজনক ঘটনা’ বলে মন্তব্য করেছেন।

0Shares

Comments

comments