,

শিরোনাম :

যুবলীগ ছাত্রলীগ কর্মীদের সন্ত্রাসী ও ডাকাত বলায় এমপি রুস্তম আলী ফরাজী অবরুদ্ধ : উদ্ধার করল পুলিশ

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুর-৩ (মঠবাড়িয়া) আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য ডা. রুস্তম আলী ফরাজী সোমবার দুপুরে মঠবাড়িয়ার সাপলেজায় এক অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগ ও যুবলীগ কর্মীদের সন্ত্রাসী ও ডাকাত বলায় ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতাকর্মীরা ও এলাকাবাসী তাকে অবরুদ্ধ করে রাখে । পরে থানা পুলিশে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল গিয়ে তাকে উদ্ধার করে মঠবাড়িয়া নিয়ে আসে।

জানা গেছে, জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার সাপলেজা মডেল হাই স্কুলে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ক্লাস বন্ধ রেখে মৎস্য সংরক্ষণ ও চাষ বিষয়ক উদ্বুদ্ধকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় প্রধান অতিথি ডা. রুস্তম আলী ফরাজী এমপি স্থানীয় ছাত্রলীগ ও যুবলীগ কর্মীদের সন্ত্রাসী ও ডাকাত বলে পুলিশকে তাদের গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়ে বক্তব্য রাখেন। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে সমাবেশ চলাকালে স্থানীয় যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও এলাকাবাসী বিক্ষোভে ফেটে পড়ে এবং সমাবেশস্থলে প্রায় এক ঘন্টা এমপিকে অবরুদ্ধ করে রাখে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি মো. মিরাজ মিয়া অভিযোগ করেন, কোমল মতি ৩ শতাধিক শিক্ষার্থীর ক্লাস বন্ধ করে মেঝেতে বসিয়ে সমাবেশ করা হয়। সমাবেশে আমিসহ আমার দলের নেতাকর্মীদের সন্ত্রাসী ও ডাকাত বলায় এলাকাবাসী ও আমার নেতাকর্মীরা ক্ষুব্ধ হয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে তাকে অবরুদ্ধ করে রাখে।

মঠবাড়িয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার কাজী শাহ্ নেওয়াজ জানান, খবর পেয়ে  পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে এমপিকে মঠবাড়িয়া নিয়ে আসে।

এমপি ডা. রুস্তম আলী ফরাজী জানান, তার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মিরাজের নির্দেশে তার উপর পরিকল্পতিভাবে হামলার চেষ্টা চালায়। এ ব্যাপারে যুবলীগ ও ছাত্রলীগ কর্মীদের আসামি করে থানায় মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে বলে তিনি জানান।

 

0Shares

Comments

comments