,

শিরোনাম :

মঠবাড়িয়ায় স্কুল ছাত্রীকে বেত্রাঘাত ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ৫ম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে শিক্ষকের বেত্রাঘাত ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি পৌর শহরের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ৫৬নং মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ওই স্কুল ছাত্রী মালিহা মাহাবুব এর বাবা প্রভাষক মাহাবুবুর রহমান শনিবার বিচার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বরাবরে লিখিত অভিযোগ দেন। মালিহা মাহাবুব ৫৬ নং মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৫ম শ্রেনীর ছাত্রী।
অভিযোগ সুত্রে জানাগেছে, শিক্ষক শহিদুল ইসলামের কাছে শুক্রবার সকালে প্রতিদিনের ন্যায় নিউমার্কেটের বাসায় প্রাইভেট পড়ার সময় ৫টি আংক করতে দেয়। এ সময় ওই ছাত্রী মালিহা ৪টি অংক নিভূল করে এবং একটি অংক না পারায় ওই স্কুল ছাত্রীকে এলোপাথারী বেত্রাঘাত করে আহত করে। এ সময় মালিহাকে বেত্রাঘাতের কথা বাসায় না বলার জন্য শ^াসিয়ে দেয়। অভিযোগে আরও উল্লেখ করেন শিক্ষক শহিদুল ইসলাম বিভিন্ন সময় মানসিক নির্যাতনও করেন।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত শিক্ষক শহিদুল ইসলামকে একাধিকবার মুঠো ফোনে (০১৭৭০২২৫৮৬০) যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি ফোন ধরেন নি।
এদিকে, আহত শিক্ষার্থীর বাবা মাহাবুবুর রহমান জানিয়েছেন, বেত্রাঘাতে তার অসুস্থ্য মেয়েকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাসায় নিয়ে গেছেন। সে ওই শিক্ষক শহিদুল ইসলামের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করেন।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাইনুল ইসলাম এই অভিযোগর কথা স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে অবহিত করা হয়েছে।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জি.এম. সরফরাজ বলেন, শিক্ষকের বেত্রাঘাতের কথা মৌখিক ভাবে শুনেছি। জরুরী মিটিংয়ে পিরোজপুর জেলা সদরে থাকায় সোমবার এ বিষয়ে সিন্ধান্ত নেয়া হবে।

Comments

comments