,

শিরোনাম :
«» মঠবাড়িয়ায় নির্বাচনী সংঘর্ষে ২ প্রার্থীর ৮ কর্মী আহত «» মঠবাড়িয়ায় যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার «» মঠবাড়িয়ায় দণ্ডপ্রাপ্ত সাইদীর মুক্তি চেয়ে ধানের শীষে ভোট চাওয়ায় মাইক প্রচারম্যান আটক «» মঠবাড়িয়ায় শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত «» মঠবাড়িয়ায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীসহ ৬ নেতা বহিষ্কৃত «» তেলিখালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. শাহাদাৎ হোসেনের ইন্তেকাল «» স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আশরাফুর রহমানের মঠবাড়িয়া প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় «» মঠবাড়িয়ায় জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দিবস পালিত «» ইশতেহার আসছে : অপ্রতিরোধ্য বাংলাদেশ গড়বে আওয়ামী লীগ «» মঠবাড়িয়ায় মার্কা পেয়েই মহাজোট ও আ’লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থীর মিছিল

মঠবাড়িয়ায় শিক্ষকের নির্মম নির্যাতনে স্কুলছাত্র হাসপাতালে : তদন্ত কমিটি গঠন

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় কোচিং সেন্টারে সহপাঠি ছাত্রীর সাথে কথা বলার অপরাধে কে,এম, লতীফ ইনস্টিটিউশনের অস্টম শ্রেণীর এক ছাত্রকে নির্মমভাবে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করেছে ওই স্কুলেরই এক শিক্ষক। রোববার দুপুরে শহরের তরকারী বাজার সংলগ্ন ওই শিক্ষকের কচিং সেন্টারে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত স্কুল ছাত্র তানজিল (১৪) কে সহপাঠিরা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। আহত তানজিল মঠবাড়িয়া গ্রামের মৃত লাবু তালুকদারের ছেলে।

আহত ছাত্র জানান, ওই স্কুলের ক্রীড়া শিক্ষক গিয়াস উদ্দিনের কোচিং সেন্টারের একজন সে নিয়মিত ছাত্র। রোববার সকালে ওই সেন্টারে কোচিং এর ক্লাস শেষে ভুলে ফেলে রেখা বই দুপুরে টিফিনের সময় ওই আনতে যাই। এ সময় শিক্ষক গিয়াস উদ্দিন তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আমাকে বেত দিয়ে এলাপাথারী পিটিয়ে ও লাথি মেরে মারাত্মক আহত করে।
তানজিলের ফুফু তাসলিমা বেগম জানান, এর আগেও নানা অজুহাতে তানজিলকে ওই শিক্ষক পিটিয়েছে।
অভিযুক্ত শিক্ষক গিয়াস উদ্দিন জানান, কোচিং সেন্টারের ভিতরে সহপাঠি এক ছাত্রীর সাথে আপত্তিকর অবস্থায় দেখতে পাওয়ায় নির্যাতন করেন বলে স্বীকার করেন। তবে নির্যাতনের পরিমান বেশী হয়ে গেছে বলেও জানান তিনি।
স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান জানান, নির্যাতনের খবর পেয়ে হাসপাতালে গিয়ে ওই ছাত্রে খোঁজখবর নিয়েছি এবং এ ঘটনায় অভিযুক্ত ওই শিক্ষককে কারণ দর্শানোর নোটিশদেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষক নুরুল ইসলাম বিএসসিকে আহবায়ক করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

 

Comments

comments