,

শিরোনাম :

মঠবাড়িয়ায় মিথ্যা ধর্ষণ মামলা দিয়ে ব্যবসায়ীকে হয়রানির অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় মিথ্যা ধর্ষণ মামলা দিয়ে এক ব্যবসায়ীকে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় গত তিন মাস ধরে জেল হাজতে থাকা ওই ব্যবসায়ীর স্ত্রী মোসা. মনিরা আক্তার বৃহস্পতিবার দুপুরে মঠবাড়িয়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মনিরা জানান, তার স্বামী নুরুজ্জামান উপজেলার বাইশকুড়া বাজারের একজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। বাকিতে মালামাল কেনাবেচাকে কেন্দ্র করে একই বংশের আজিজ খাঁর পুত্র হাসনাতের সাথে তার বিরোধ দেখা দেয়। ওই বিরোধের জের ধরে হাসনাত ও তার সহযোগী আমান উল্লাহ, ইউনুচ ও বাদল মিলে বাজারে বিভিন্ন হোটেলে দিনমজুরের কাজ করা ১১ বছরের এক শিশু কন্যাকে দিয়ে আমার স্বামী নুরুজামানের বিরুদ্ধে গত ১১ আগস্ট মঠবাড়িয়া থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করায়। পুলিশ ওই মামলায় নুরুজামানকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠালেও ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের কোনো আলামত পাওয়া যায়নি।
তিনি আরও বলেন, গত তিন মাস ধরে এ মিথ্যা মামলায় সে জেল হাজতে থাকায় শ্বাসকষ্টসহ বিভিন্ন রোগে ভুগছে। এ ছাড়াও উপার্জনের একমাত্র দোকানটি বন্ধ থাকায় অর্ধাহারে-অনাহারে জীবনযাপনসহ বিভিন্ন এনজিওর লোকজন কিস্তির তাগাদা দিচ্ছে এবং তার স্কুল ও কলেজপড়ুয়া ছেলেমেয়েদের লেখাপড়া বন্ধ হয়ে যাচ্ছে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মঠবাড়িয়া থানার এসআই রেজাউল করিম রাজিব বলেন, মামলা দায়েরের পর অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয় এবং ওই শিশু আদালতে জবানবন্দি দেয়।

 

0Shares

Comments

comments