,

শিরোনাম :

মঠবাড়িয়ায় বাল্যবিয়ে পণ্ড : বরের বাবার অর্থদণ্ড

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল নবম শ্রেণির মাদ্রাসাছাত্রী নিপা (১৪)। উপজেলার হলতা গ্রামে কনের বাড়িতে বুধবার বিকালে এ বাল্যবিয়ে পণ্ড হওয়ার ঘটনা ঘটে।
মঠবাড়িয়া থানার এসআই সিদ্দিকুর রহমান জানান, উপজেলার হলতা গ্রামে শিপন খানের মেয়ে নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া মাদ্রাসাছাত্রী নিপার সাথে পার্শবর্তী বামনা উপজেলার ডৌয়াতলা গ্রামের মোতালেব সরদারের ছেলে মনোয়ার হোসেনের (২৬) বিয়ের আয়োজন করে দুই পরিবার। বুধবার বিকালে বিয়ের ধুমধাম চলছিল কনের বাড়িতে। বর মনোয়ার (২৬) আত্মীয়স্বজন নিয়ে বিয়েবাড়িতে উপস্থিত। মেহমানদের জন্য রান্নাবান্নার আয়োজনও শেষ। ভুক্তভোগী মাদ্রাসাছাত্রী রাজি না থাকলেও বর ও কনের পরিবারের সম্মতিতেই হচ্ছিল বিয়ের আয়োজন।
স্থানীয়রা বাল্যবিয়ের বিষয়টি গোপনে উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করেন। কাজি বিয়ের কাজ শুরুর আগেইে বিয়েবাড়িতে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মনিকা আক্তার পুলিশ নিয়ে হাজির হন। পরে বর ও কনের অভিভাবকসহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) সহকারী কমিশনার (ভূমি) রিপন বিশ^াসের ভ্রাম্যমাণ আদলতে হাজির করলে কনের বাবা-মায়ের কাছ থেকে মেয়ের ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে না দেওয়ার শর্তে মুচলেকা নেওয়া হয়। এবং বরের বাবা মোতালেব সরদারকে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়।

0Shares

Comments

comments