,

শিরোনাম :
«» মঠবাড়িয়ায় রাস্তার পাশে লাইসেন্স ছাড়া পেট্রল ও এলপি গ্যাস বিক্রি, ব্যবসায়ীর জরিমানা «» মঠবাড়িয়ায় অবরোধকালীন সময় সংশোধনের দাবিতে জেলেদের মানববন্ধন «» মঠবাড়িয়ায় জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ শুরু «» মঠবাড়িয়ায় নুসরাত হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন «» মঠবাড়িয়ায় ক্যান্সার আক্রান্ত জান্নাতিকে অর্থ সহায়তা প্রদান «» মঠবাড়িয়ায় বৈশাখী মেলায় নিখোঁজ হওয়া স্কুল ছাত্র নয়নের ৮ দিনেও সন্ধান মেলেনি «» মঠবাড়িয়ায় ইভটেজিং এর দায়ে দপ্তরীর অর্থদন্ড «» নুসরাত হত্যার সর্বোচ্চ বিচার চেয়ে মঠবাড়িয়ায় মানববন্ধন «» আ: ছত্তার আকনের ইন্তেকাল «» মঠবাড়িয়ায় মৎস্য অফিসের ক্ষেত্র সহকারীর অপসারণের দাবিতে মানববন্ধন

মঠবাড়িয়ায় নিখোঁজের ৩ দিন পর স্কুলছাত্রীর লাশ উদ্ধার : ধর্ষণ শেষে হত্যার অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় স্কুলছাত্রী ঊর্মি আক্তার (১০) নিখোঁজ হওয়ার তিন দিন পর রোববার সকালে বাড়ির অদ‍ূরে বাগানের ডোবা থেকে গলায় ফাঁস লাগানো লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। ওই ছাত্রী গত শুক্রবার বিকেলে প্রতিবেশী এক বন্ধবীর বাড়িতে যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে
বের হয়ে নিখোঁজ হয়। নিহত ঊর্মি উপজেলার ৬নং মধ্য বড়মাছুয়া (জামতলা) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী ও অনলাইন পোর্টাল মঠবাড়িয়া কণ্ঠের নির্বাহী সম্পাদক সোহেল আমিনের ছোট মেয়ে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ওই ছাত্রীকে নিখোঁজের দিনই সন্ধ্যায় পাশবিক নির্যাতন শেষে শ্বাসরোধে হত্যা করে বাগানের ডোবায় লাশ ফেলে রাখে দুর্বৃত্তরা।
থানা ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, উত্তর বড়মাছুয়া গ্রামের মৃত মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিনের পুত্র সোহেল আমিনের প্রথম স্ত্রী সেলিনার সাথে নয় বছর আগে বিচ্ছেদের পর বড় মেয়ে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী শর্মি (১৩) ও ঊমি (১০) দাদি মেহেরুন আমিনের সাথে উত্তর বড়মাছুয়ার গ্রামে বাড়িতে থাকত। পিতা সোহেল দ্বিতীয় স্ত্রী ও এক সন্তান নিয়ে মঠবাড়িয়া পৌর শহরে ভাড়া বাসায় থাকেন। গত শুক্রবার বিকেলে ঊর্মি তার দাদির কাছে বলে প্রতিবেশী এক বান্ধবীর বাড়িতে
বেড়াতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। এ ঘটনায় পিতা সোহেল রোববার সকালে মঠবাড়িয়া থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেন। এর কিছুক্ষণ পর প্রতিবেশী জাহাঙ্গীর আকনের স্ত্রী কুরসিয়া বাগান থেকে যাওয়ার পথে গলায় ফাঁস লাগানো লাশ ডোবায় ভাসতে দেখে থানা পুলিশকে খবর দেয়।
নিহতের বাবা সোহেল আমিন জানান, দুর্বৃত্তরা ধর্ষণ শেষে আমার মেয়েকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে।
মঠবাড়িয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার কাজী শাহ নেওয়াজ জানান, নিহতের পরনে স্যালোয়ার না থাকায় প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে হত্যার আগে তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে। তিনি জানান, এ ব্যাপারে মঠবাড়িয়া থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।
পিরোজপুর জেলা পুলিশ সুপার মোঃ ওয়ালিদ হোসেন রোববার বিকেলে ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের জানান, লাশের ময়নাতদন্তের পর জানা যাবে ধর্ষিত হয়েছে কি না।

শোক প্রকাশ : সাংবাদিককন্যা ঊর্মির অকালমৃত্যুতে মঠবাড়িয়া প্রেসক্লা‌বের সভাপতি আবদুস সালাম আজাদী, সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান, মঠবাড়িয়া প্রতিদিনের প্রতিষ্ঠাতা জহিরুল ইসলাম, সিটিজেন জার্নালিজম মঠবাড়িয়ার আহ্বায়ক মোস্তাফিজ বাদলসহ মঠবাড়িয়ায় কর্মরত  সাংবাদিকরা শোক প্রকাশ ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের  প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন। একই সঙ্গে তারা দোষীদের শনাক্ত করে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের জন্য প্রশাসনের প্রতি দাবি জানিয়েছেন।

 

Comments

comments