,

শিরোনাম :

মঠবাড়িয়ায় ঘর “অক্ষত” তবুও ঘর পোড়ানো মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানীর অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় পূর্ব শত্রুতার জেরে বসত ঘর অক্ষত থাকলেও ওই বসত ঘর পোড়ানো দেখিয়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষদের বিরুদ্ধে। এ ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার উদয়তারা বুড়িরচড় গ্রামে।

স্থানীয় চান মিয়া হওলাদারের ছেলে ইসমাইল বাদি হয়ে ঘটনার ২৬ দিন পর প্রতিবেশী মৃত: আবুল হাসেম হাওলাদারের ছেলে ওবাইদুলকে প্রধান আসামী করে ৭জনকে এজাহার নামিয় ও ৫জনকে অজ্ঞাত আসামী করে গত ১১ সেপ্টেম্বর’ ১৯ এ মামলা দায়ের করে। শনিবার দুপুরে উপজেলার উদয়তারা বুড়িরচর গ্রামের মিথ্যা মামলা ও হয়রানীর শিকার ভূক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা স্থানীয় মোজাম্মেল হাওলাদারের ঘরের উঠানে সংবাদ সম্মেলন করে এ অভিযোগ করেন।


এ সময় ওই মামলায় জেলহাজতে থাকা ওবাইদুল হাওরাদারের স্ত্রী লাবনী আক্তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, প্রতিবেশী উদয়তারা বুড়িরচর গ্রামের চান মিয়া হাওলাদারের পুত্র ইসমাইল হাওলাদারের সাথে আমার স্বামী ওবাইদুলের দীর্ঘদিন ধরে জমাজমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। ওই বিরোধের জেরে গত ১৫ আগস্ট’ ১৯ ইসমাইল তার বসত ঘর ভাংচুর ও পুড়িয়ে দেয়ার মিথ্যা নাটক সাজিয়ে গত ১১ সেপ্টেম্বর’ ১৯ আমার স্বামী ওবাইদুলকে ওই মিথ্যা মামলার ১নং আসামি করে ৭ জন এজাহার নামিয় ও অজ্ঞাত আরও ৫জনকে আসামি করে মঠবাড়িয়া থানায় একটি মিথ্যা মামলা (নং-২১) দায়ের করে। ওই মামলায় পুলিশ ওবাইদুল ও তার ভাই এমাদুল হাওলাদারকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠায়।
লিখিত অভিযোগে আরও বলেন, ঘর ভাংচুর বা পুড়িয়ে দেয়ার কোন ঘটনাই ঘটেনি অথচ ইসমাইল হাওলাদার মিথ্যা ঘটনার নাটক সাড়িয়ে ঘটনায় প্রায় ১ মাস পরে মঠবাড়িয়া থানাকে ভুলবুঝিয়ে এ মিথ্যা মামলাটি দায়ের করেন। তার ঘরটি সম্পূর্ণূ অক্ষতাবস্থায় দাড়িয়ে আছে। এ হয়রানী মুলক মিথ্যা মামলা থেকে রেহাই পেতে পুলিশের উর্দ্ধতণ কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন ভূক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা। এসময় উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সোহরাফ হোসেন, আলতাফ হোসেন হাওলাদার, জাহানারা বেগম, দেলোয়ার হোসেন, হাজী মোশারফ হোসেনসহ অর্ধশত গ্রামবাসি।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস আই বশির আহম্মেদ কে এ মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন এখন ব্যাস্ত থাকায় কথা বলতে পারছিনা।
মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আব্দুল্লাহ বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

 

Comments

comments