,

শিরোনাম :

মঠবাড়িয়ায় কলেজে হামলা ও নৈশ প্রহরীকে কুপিয়ে জখম করার প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার তুষখালী কলেজে শুক্রবার রাতে হামলা এবং নৈশ প্রহরীকে কুপিয়ে জখম করার প্রতিবাদে রাস্তা অবরোধ করে শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করেছে। শনিবার সকালে মঠবাড়িয়া-পিরোজপুর সড়ক অবরোধ করে কলেজের সামনের তুষখালী কলেজের শিক্ষার্থী ছাড়াও আশপাশের বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধে অংশ নেয়। এতে ১২ রুটের দূরপাল্লার যাত্রীদের ৪ ঘণ্টা দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এ সময় শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা হামলার ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেন। দুপুরের দিকে মঠবাড়িয়া থানার ওসি, ভাণ্ডারিয়া থানার ওসি, কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতিসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে প্রশাসনের কর্মকর্তারা আসামিদের গ্রেপ্তারের আশ^াস দিলে শিক্ষার্থীরা অবরোধ তুলে নেয়।
স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার রাত ৯টার দিকে মুখোশধারী একদল সন্ত্রাসী কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মিরাজুল ইসলামকে অশ্লীল ভাষায় গালাগালি করে এবং কলেজের সাইনবোর্ড, সিসি ক্যামেরা, মোটরসাইকেলসহ কলেজ সংলগ্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভাঙচুর চালায়। এ ছাড়াও ওই কলেজের মাঠে রাখা বাস, ট্রাক, ট্রলিসহ বিভিন্ন বেশ কয়েকটি ক্ষুদ্র যানবাহন ভাঙচুর করা হয়। এ সময় নৈশ প্রহরী খায়রুল (৩৫) বাধা দিলে তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর জখম করে ফেলে রেখে যায় দুর্বৃত্তরা। পরে স্থানীয়রা খায়রুলকে উদ্ধার করে মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে অবস্থার অবনতি হলে তাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।
এদিকে একই ঘটনায় বিকেলে পৃথক সমাবেশ ডেকে মাইকিং করা হচ্ছে। এতে উপজেলা জুড়ে টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে।
মঠবাড়িয়া থানার ওসি মাসুদুজ্জামান জানান, এ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে মিলন মেম্বারসহ ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

 

0Shares

Comments

comments