,

শিরোনাম :

বিদ্রোহী প্রার্থীর কর্মীদের হামলায় আ.লীগ প্রার্থীসহ আহতের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন

স্টাফ রপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় ৫ম উপজেলা নির্বাচনে সতন্ত্র (আনারস প্রতীক) প্রার্থীর কর্মীদের হামলায় আ’লীগ (নৌকা প্রতীক) চেয়ারম্যান প্রার্থী হোসাইন মোশারেফ সাকুসহ ২০ জন আহত হয়েছেন। এ হামলার ঘটনায় পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
রোববার দুপুরে উপজেলা আ’লীগ কার্যালয় উপজেলা আ’লীগ সভাপতি ও পৌর মেয়র মো. রফিউদ্দিন আহমেদ ফেরদৌস সংবাদ সম্মেলন করেন। এ সময় তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার গুলিসাখালীতে আ‘লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী হোসাইন মোশারেফ সাকুর (নৌকা) পক্ষে পথসভা শেষে বাজারে দলীয় কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের সাথে কথা বলছিলেন স্থানীয় চেয়ারম্যান ঝনো। এ সময় সতন্ত্র প্রার্থী (আনারস প্রতীক) মো. রিয়াজ উদ্দিন ও পদত্যাগী সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আশরাফুর রহমানের নেতৃত্বে ৫০/৮০ জনের একটি দুর্বৃত্তের দল স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াজুল আলম ঝনোসহ বেশ কয়েক জনের ওপর হামলা চালায়। এখবর শুনে আ’লীগ উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হোসাইন মোশারেফ সাকু ঘটনাস্থলে ছুটে আসলে তাকে ও তার সাথে থাকা ২০ জন নেতা কর্মীকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করা হয় এবং ১০টি মটর সাইকেল ভাঙ্গচুর করে। তিনি আরও বলেন জননেত্রী শেখ হাসিনার মনোনীত উপজেলা চেয়ারম্যন প্রার্থীর গনজোয়ার দেখে পদত্যাগী উপজেলা চেয়ারম্যান আশরাফুর রহমান ও তার আপন বড় ভাই উপজেলা আ’লীগ সদস্য বিদ্রোহী প্রার্থী মো.রিয়াজ উদ্দিন সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে এ হামলা চালায়। এ হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচারের দাবি জানাচ্ছি।
অপর দিকে বিকেলে বিদ্রোহী প্রার্থী মো.রিয়াজ উদ্দিনের পৌরশহরের প্রধান নির্বাচনী কার্যালয় সংবাদ সম্মেলন করে তার উপরে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, শনিবার রাত ১০টার দিকে রিয়াজুল আলমের নেতৃত্বে গুলিসাখালী বাজারে অবস্থিত আমার (আনারস প্রতীক) নির্বাচনী কার্যালয় ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কার্যালয় ভাঙচুর করে এবং হলতা গুলিসাখালী ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আলাউদ্দিনকে মারধর করার অভিযোগ করেন।
মঠবাড়িয়া থানার ওসি এম.আর. শওকত আনোয়ার বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। উপজেলার সব স্থানে পুলিশি টহল জোরদার করা হয়েছে। এ ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে ও হামলার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ৭জনকে আটক করা হয়েছে।

 

0Shares

Comments

comments