,

শিরোনাম :

গাঁজা সেবনে বাধা দেওয়ায় মঠবাড়িয়ায় পিতা-পুত্রের হাত-পা ভেঙে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা

স্টাফ রিপোর্টার : গাঁজা সেবনে বাধা দেওয়ায় পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ ইউনুস মিয়া (৬০) ও তার ব্যবসায়ী ছেলে রিয়াজুল ইসলাম সুমনকে (৩৩) পিটিয়ে হাত-পা ভেঙে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। শনিবার দুপুরে উপজেলার পাঁচশকুড়া ঢালাই ব্রিজের কাছে ঘটনাটি ঘটেছে। গুরুতর আহত সুমনকে বিকেলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে চিকিত্সকরা তাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে পাঠান। আহত শিক্ষক মোঃ ইউনুস মিয়া উপজেলা হাসপাতালে চিকিত্সা নিচ্ছেন।



জানা যায়, টিকিকাটা গ্রামের মোস্তফা সর্দারের পুত্র নিজাম ও ইউসুফ মৃধার পুত্র রুবেল এবং বারোআনি কাছারির রুস্তমের পুত্র মুন্না দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় গাঁজা সেবন করে আসছিল। শনিবার দুপুরে গাঁজা সেবনের সময় স্থানীয় বাসিন্দা ও পাঁচশকুড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ইউনুছ আলীর পুত্র ব্যবসায়ী সুমন তাদেরকে বাধা দেন। এর কিছুক্ষণ পর ৫-৬টি মোটর সাইকেলে করে ১৪-১৫ জনের একটি দল এসে পাইপ, লোহার রড ও হাতুড়ি দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে সুমনের দুই হাত ও এক পা ভেঙে দেয়। এ সময় ছেলেকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে ইউনুস মিয়ার ওপরেও সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে তাকে গুরুতর জখম করে। এ ছাড়া তারা সুমনের ছোট ভাই সৌরভের ওপর হামলা চালিয়ে তার দোকানের নগদ টাকাসহ মালামাল লুট করে বলে সৌরভ অভিযোগ করেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লোহার রড ও পাইপ উদ্বার করে।



টিকিকাটার ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম রিপন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জড়িতদের বিরুদ্ধে পুলিশ কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন। রোববার সন্ধ্যায় ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের সামনে অনুষ্ঠিত এক প্রতিবাদ সভায় রফিকুল ইসলাম রিপন দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান।

মঠবাড়িয়ার থানার ওসি কে এম তারিকুল ইসলাম রোববার রাতে জানান, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

 

Comments

comments