,

শিরোনাম :
«» মঠবাড়িয়ায় শিশু ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মাদ্রাসা ছাত্র গ্রেফতার «» মঠবাড়িয়ায় নির্বাচনী বিরোধের জেরে দুই প্রার্থীর দুই সমর্থক আহত «» মঠবাড়িয়ায় জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা «» মহিউদ্দিন আহমেদ মহিলা ডিগ্রি কলেজ উপজেলায় শ্রেষ্ঠ হওয়ায় আনন্দ শোভাযাত্রা «» মঠবাড়িয়ায় জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় «» মঠবাড়িয়া উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানগনের দায়িত্ব গ্রহণ «» মঠবাড়িয়ায় ১১মামলার আসামীসহ ২ ডাকাত গ্রেফতার «» দৈনিক যায়যায়দিন পত্রিকার ১৪ বছরে পদার্পণ উপলক্ষে মঠবাড়িয়ায় শোভাযাত্রা «» মঠবাড়িয়ায় দুই বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি : বাধা দেয়ায় গৃহবধূকে মারধর «» মঠবাড়িয়ায় আইনশৃঙ্খলা উন্নয়নে সুধী সমাবেশ ও মতবিনিময় সভা

আজ বিজয়ের দিন : আজ মঠবাড়িয়া প্রতিদিনের তিন বছর পূর্তি

জহিরুল ইসলাম : আজ ১৬ই ডিসেম্বর ২০১৬। আমাদের গৌরবের মহান বিজয় দিবস।স্বাধীনতা যুদ্ধপর্বের অবিস্মরণীয় একটি দিন। লাখো শহীদের রক্তস্নাত বিজয়ের দিন। বিশ্বের মানচিত্রে নতুন স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের ৪৫ বছর পূর্তি আজ। পাকিস্তানি শাসকদের শোষণ, নিপীড়ন আর দুঃশাসনের কুহেলিকা ভেদ করে ১৯৭১ সালের এই দিনটিতে বিজয়ের প্রভাতি সূর্যের আলোয় ঝিকমিক করে উঠেছিল বাংলাদেশের শিশির-ভেজা মাটি। অবসান হয়েছিল পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর শোষণ, বঞ্চনা আর নির্যাতনের কৃষ্ণতম অধ্যায়ের। নারী-পুরুষ-শিশু সবার চোখে ঠাঁই পেয়েছিল সীমাহীন আনন্দের অশ্রু। বিজয়ের অনুভূতির ঝিলিক।
১৭৫৭ সালে পলাশীর আম্রকাননে স্বাধীনতার যে সূর্য অস্তমিত হয়েছিল সেটির উদয় ঘটে ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর। বিজয়ের মহামুহূর্তটি সূচিত হয়েছিল আজকের এই দিনে। সেদিন ৯১ হাজার ৫৪৯ পাকিস্তানি সৈন্য প্রকাশ্যে আত্মসমর্পণ করেছিল। ঢাকার ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর পূর্বাঞ্চলীয় কমান্ডের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট জেনারেল আমির আব্দুল্লাহ খান নিয়াজী মিত্র বাহিনীর পূর্বাঞ্চলীয় কমান্ডের সর্বাধিনায়ক লেফটেন্যান্ট জেনারেল জগজিৎ সিং অরোরার কাছে আত্মসমর্পণের দলিলে স্বাক্ষর করেছিল। দেনদরবার নয়, কারও দয়ার দানে নয়, এক সাগর রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বিজয়ের পর নতমস্তকে পাকিস্তানি বাহিনী পরাজয় মেনে নিয়েছিল।পৃথিবীতে নতুন একটি রাষ্ট্র হিসেবে স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয় ঘটেছিল। আর এই বিজয়ের মহানায়ক হিসেবে যিনি ইতিহাসে চির অম্লান ও ভাস্বর হয়ে আছেন তিনি হলেন হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।
মহান বিজয় দিবস পালনে যেন নতুন সাজে সেজেছে বাংলাদেশ। সারা দেশ ছেয়ে গেছে লাল-সবুজের পতাকায়। আজ প্রত্যুষে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে মহান বিজয় দিবসের সূচনা হবে। আজ সরকারি ছুটির দিন। সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধসহ সারা দেশের শহীদ মিনারগুলোতে নামবে শহীদদের প্রতি চিরকৃতজ্ঞ জনতার ঢল। বীর শহীদদের মহান ত্যাগের কথা স্মরণ করে কৃতজ্ঞ জাতিশহীদবেদিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করবে। দেশজুড়ে আজ পতপত করে উড়বে আমাদের জাতীয় পতাকা। বিজয়ের পতাকা।

মঠবাড়িয়া প্রতিদিনের পাঠকদের হয়তো মনে আছে, আজ থেকে তিন বছর আগে বিজয়ের এই দিনটিতেই পথচলা শুরু করেছিল দক্ষিণবঙ্গের ক্ষুদ্র ভূখণ্ড মঠবাড়িয়ার প্রথম অনলাইন সংবাদপত্র মঠবাড়িয়া প্রতিদিন। বিজয়ের ৪৫ বছর পূর্তির সঙ্গে সঙ্গেই মঠবাড়িয়া প্রতিদিনের তিন বছর পূর্তি হল আজ। এই তিন বছরে আমরা পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে অবস্থানরত লাখো মঠবাড়িয়াবাসীর কাছে পৌঁছতে সক্ষম হয়েছি। লাখো পাঠকের ভালোবাসায় সিক্ত হয়েছে মঠবাড়িয়া প্রতিদিন। সীমাবদ্ধ আয়োজনের এই অনলাইন সংবাদপত্রটির জন্য এই অর্জন বিশাল।
মঠবাড়িয়া প্রতিদিন শুরু থেকেই দায়িত্বশীল সংবাদ পরিবেশনে সচেষ্ট থেকেছে। হুজুগে গা ভাসাইনি আমরা। প্রতিটি সংবাদ, প্রতিটি ছবি প্রকাশের ক্ষেত্রে তা সমাজে কতটা প্রভাব ফেলবে সে-বিষয়টি চিন্তায় রেখেছি আমরা। নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে এ-ধরনের সংবাদ এবং ছবি প্রকাশ থেকে আমরা বিরত থাকার চেষ্টা করেছি। আগামীতেও দায়িত্বশীল সংবাদ পরিবেশনের জন্য সঙ্কল্পবদ্ধ মঠবাড়িয়া প্রতিদিন। পাঠক একটু খেয়াল করলেই মঠবাড়িয়া প্রতিদিনের স্বকীয়তা বুঝতে পারবেন বলে আশা করি।
আজকের এই বিজয়ের দিনে, আজকের এই বর্ষপূর্তির দিনে মঠবাড়িয়া প্রতিদিন পরিবারের পক্ষ থেকে সকল পাঠক, বিজ্ঞাপনদাতা ও শুভানুধ্যায়ীর প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। সবাইকে বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা। 

লেখক : প্রতিষ্ঠাতা, মঠবাড়িয়া প্রতিদিন; শিশুসাহিত্যিক; প্রধান সম্পাদনা সহকারী, দৈনিক সকালের খবর

Comments

comments